প্রাথমিক চিকিৎসা কি

প্রাথমিক চিকিৎসা কি? প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কে যা জানা উচিত

প্রাথমিক চিকিৎসা কারো জীবন বাঁচাতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। প্রাথমিক চিকিৎসাকে ইংরেজিতে FIRST AID (ফার্স্ট এইড ) বলা হয়। দুর্ঘটনা বা আঘাতের পরে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করার মাদ্ধমে আহত ব্যক্তির জীবন বাঁচানো যেতে পারে।

প্রাথমিক চিকিৎসা একটি সাধারণ আঘাতের জন্য ব্যান্ডেজ থেকে শুরু করে CPR দেওয়ার প্রক্রিয়া পর্যন্ত হতে পারে। প্রত্যেক ব্যক্তির প্রাথমিক চিকিৎসা জানা থাকা উচিত যাতে তিনি প্রয়োজনের সময় এটি কাজে লাগাতে পারেন

এই আর্টিকেলে, আপনি প্রাথমিক চিকিৎসার অর্থ, এর গুরুত্ব, উদ্দেশ্য, নীতিমালা এবং কীভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে হয় সে সম্পর্কে শিখবেন।

What is First Aid? – প্রাথমিক চিকিৎসা কি?

প্রাথমিক চিকিৎসা বা (First Aid) হল এমন সহায়ক চিকিৎসা যা আঘাতের পর ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই করা হয়। অসুস্থ ব্যক্তির অবস্থার উন্নতির জন্য প্রাথমিক চিকিৎসাও ব্যবহার করা হয়।

কিছু সহজ কৌশল এবং খুব কম সরঞ্জাম ব্যবহার করে জরুরি অবস্থায় কাউকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার জন্য আপনার বিশেষ প্রশিক্ষণের প্রয়োজন নেই। এটা সহজে শেখা যায়।

জরুরী অবস্থায় কাউকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার প্রয়োজন হলে, সম্ভব হলে আহত ব্যক্তির রক্ত, লালা এবং অন্যান্য শারীরিক তরল থেকে দূরে থাকুন। যদি এটি সম্ভব না হয়, নিজেকে রক্ষা করার জন্য গ্লাভস পরুন। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পরে, সর্বদা আপনার হাত ভালভাবে ধুয়ে নিন এবং আপনার চোখ, নাক বা মুখ স্পর্শ করবেন না। সেই সঙ্গে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর হাত না ধুয়ে খাবার খাবেন না।

The importance of First Aid – প্রাথমিক চিকিৎসার গুরুত্ব

প্রাথমিক চিকিৎসা শুধুমাত্র জীবনই বাঁচায় না, এটি দ্রুত রোগ নিরাময় করতে সাহায্য করে এবং একজন ব্যক্তিকে যে কোনো বড় শারীরিক ক্ষতি থেকেও বাঁচাতে পারে। কীভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা করতে হয় তা শেখার মাদ্ধমে আপনাকে জরুরি অবস্থায় শান্ত থাকতে এবং প্রয়োজনীয় প্রাথমিক চিকিৎসা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে সাহায্য করতে পারে। এটি আপনার আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে তুলবে এবং জরুরী পরিস্থিতিতে আপনাকে আরও কার্যকর চিকিৎসা দেয়ার অনুমতি দেবে।

আরো পড়ুন: চুল পড়ার কারণ এবং চুল পড়া বন্ধ করার উপায় কি কি

নিম্নলিখিত বিষয়গুলি থেকে আপনি প্রাথমিক চিকিৎসার গুরুত্ব সম্পর্কে বুঝতে পারবেন:

  • প্রতিবার দুর্ঘটনা বা আঘাতের সময় হাসপাতালে যাওয়ার দরকার নেই, তবে এর অর্থ এই নয় যে আহত ব্যক্তির ব্যথা বা ভোগান্তি নেই। যদি কোনো শিশু জ্বর বা আঘাতের কারণে কান্নাকাটি করে, তার মানে তার সমস্যা হচ্ছে। একটি সঠিক ব্যান্ডেজ বা কোল্ড কম্প্রেস প্রয়োগ করে আপনি সেই শিশুর সমস্যা কমাতে পারেন। আপনি শান্ত থাকার মাধ্যমে শিশুকে মানসিক সহানুভূতিও দিতে পারেন, এতে সে নিরাপদ বোধ করবে এবং তার অস্বস্তিও কম হবে। (আরও পড়ুন: শিশুর জ্বর)
  • আক্রান্ত ব্যক্তিকে সঠিক সময়ে প্রাথমিক চিকিৎসা না দিলে তার অবস্থার অবনতি হতে পারে। পূর্ণাজ্ঞ চিকিৎসা বা সাহায্যের জন্য অপেক্ষা করার সময় আপনি তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ভালো করে তুলতে পারেন। যদি একটি ফার্স্ট এইড বক্স উপলব্ধ না হয়, আপনি জরুরী পরিস্থিতিতে বাড়িতে অন্যান্য জিনিস ব্যবহার করতে শিখতে পারেন।
  • আপনি যদি আহত ব্যক্তির অবস্থা সঠিকভাবে মূল্যায়ন করতে জানেন তবে আপনি ডাক্তারকে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির সঠিক অবস্থা সম্পর্কে বলতে সক্ষম হবেন, যা অনেক সময় বাঁচবে।
  • সঠিক প্রাথমিক চিকিৎসার জ্ঞান থাকার মাদ্ধমে আপনার নিজেকে রক্ষা করতে এবং সেইসাথে আহত ব্যক্তিকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে যাতে আপনার আহত ব্যক্তির সাহায্যের প্রয়োজন না হয়।

The purpose of First Aid – প্রাথমিক চিকিৎসার উদ্দেশ্য

প্রাথমিক চিকিৎসার নিম্নলিখিত তিনটি প্রধান উদ্দেশ্য রয়েছে:

জীবন বাঁচায়:

প্রাথমিক চিকিৎসার মূল উদ্দেশ্য হল আহত বা ক্ষতিগ্রস্থের জীবন বাঁচানো। কারো জীবন বাঁচানোর জন্য আপনি সবসময় একজন ডাক্তারের উপর নির্ভর করতে পারেন না। এটা সম্ভব নয় যে একজন ডাক্তার সবসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকযে, তাই আপনার সঠিক প্রাথমিক চিকিৎসার মাদ্ধমে আহত ব্যক্তির জীবন বাঁচানো যেতে পারে।

পরিস্থিতি খারাপ হওয়া রোধ করা

প্রাথমিক চিকিৎসার উদ্দেশ্য হল আহত ব্যক্তির অবস্থা এবং ক্ষত যাতে খারাপ থেকে খারাপের দিকে না গড়ায় । কাউকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার অর্থ হল আপনি সেই ব্যক্তিকে বিপদ থেকে রক্ষা করছেন বা তার বিপদ হ্রাস করছেন। উদাহরণস্বরূপ, আগুনে পুড়ছে এমন একজনকে কম্বল দেওয়া তাকে আগুন থেকে রক্ষা করবে এবং তার জন্য প্রাথমিক চিকিৎসা হিসাবে কাজ করবে।

দ্রুত ক্ষত থেকে পুনরুদ্ধারে সাহায্য করা

কিছু ক্ষেত্রে, প্রাথমিক চিকিৎসা রোগীকে দ্রুত ক্ষত থেকে পুনরুদ্ধারে সাহায্য করে। যারা ফার্স্ট এইড করতে জানেন, তারা জানেন যে ছোটখাটো কাটা থেকে শুরু করে ফ্র্যাকচার হলে কি চিকিৎসা করতে হয়।

প্রাথমিক চিকিৎসার নিয়ম ABC

দূর্ঘটনা ঘটার পর যদি ব্যক্তিটি অজ্ঞান হয়ে যায়, তবে তা সংশোধন করার জন্য আপনাকে নিম্নলিখিত বিষয়গুলির যত্ন নিতে হবে। এগুলোকে প্রাথমিক চিকিৎসার “A-B-C”ও বলা হয়।র্

A -শ্বাসনালী পরিক্ষা

সবার আগে দেখে নিন ব্যক্তির শ্বাসনালী খোলা আছে কি না। শ্বসনতন্ত্র হল একটি নল যার মাধ্যমে বাতাস ফুসফুসে প্রবেশ করে এবং বাহির করে। এই টিউব বন্ধ হয়ে গেলে শ্বাস নেওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। মূর্ছা যাওয়ার পর মুখের পেশি ঢিলে হয়ে যাওয়ার কারণে জিহ্বা গলার পেছনের অংশে পড়ে, যার কারণে শ্বাসনালী বন্ধ হয়ে যায়।

B – শ্বাসপ্রশ্বাস  পরিক্ষা

আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাস-প্রশ্বাসে বেশি কষ্ট হয়।প্রথমে আহত ব্যক্তির মুখের কাছে আপনার কান নাড়িয়ে শুনুন, দেখুন এবং অনুভব করুন যে আহত ব্যক্তি শ্বাস নিচ্ছে কি না, যদি সে শ্বাস নিচ্ছে, তারপর একই সময়ে তাকে আপনার মুখ দিয়ে একটি শ্বাস দিন। আহত ব্যক্তিকে তার পিঠে সোজা করে শুয়ে রাখুন এবং তার মুখ বাতাসে ভরে দিন। 

C- রক্তচলাচল পরিক্ষা

এখন দেখুন আহত ব্যক্তির নাড়ি চলছে কি না, আহত ব্যক্তির নাড়ি বন্ধ হয়ে গেলে তার জন্য কার্ডিওপালমোনারি রিসাসিটেশন শুরু করুন। চেপে ধরে চারবার জোরে চাপ দিন। যদি না আহত ব্যক্তি নিজে থেকে শ্বাস নেয়। এই কাজটি আরও সঠিকভাবে করা হয় যখন দুইজন লোক থাকে কারণ একজন এটি করেন এবং অন্যজন কার্ডিওপালমোনারি রিসাসিটেশন (CPR) করেন।

আরো জানুন: এই শীতে শুষ্ক ত্বকের যত্ন নিন ১১টি উপায়ে

প্রাথমিক চিকিৎসা কিট (Frist Aid Kit)

প্রাথমিক চিকিৎসা কিট
প্রাথমিক চিকিৎসা কিট

প্রাথমিক চিকিৎসার জ্ঞান থাকলে আমরা নিজেদেরও চিকিৎসা করতে পারি। প্রাথমিক চিকিৎসার (First Aid) সুবিধার জন্য আমরা একটি প্রাথমিক চিকিৎসা বাক্স তৈরি করি, যাতে কিছু জিনিসপত্র ও ওষুধ থাকে, যাতে কিছু বাজারের এবং কিছু ঘরোয়া ওষুধ রাখা হয়।বক্সের বিস্তারিত সম্পূর্ণ বিস্তারিত নীচে দেওয়া হয়.

  1. একটি বাক্স এবং ক্ষতটি ঢেকে রাখার জন্য আলাদা ব্যান্ডেজ রাখুন
  2. ছোট কাঁচি
  3. ডেটল/স্যাভলন/অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল একটি শিশি রাখুন
  4. তুলো বান্ডিল
  5. ব্যান্ডেজ বান্ডিল
  6. 5 থেকে 6 ব্যান্ডেজ
  7. টুইজার
  8. সূঁচের ধারালো ছুরির প্যাক
  9. মেডিসিন (I) ড্রপার
  10. রেকটাল থার্মোমিটার
  11. গরম পানির বোতল
  12. বরফের ব্যাগ
  13. রোদে পোড়া, পোকামাকড়ের কামড় ইত্যাদির জন্য ক্যালিমুন লোশনের বোতল।
  14. আঠালো মেডিকেল টেপ
  15. সর্দি-কাশি, মাথাব্যথা, জ্বরের ওষুধ
  16. গ্লুকোজ
  17. ভিটামিন বড়ি
  18. নতুন ব্যাটারি সহ টর্চলাইট

সাধারণ কিছু দূর্ঘটনার প্রাথমিক চিকিৎসা

একজন দুর্ঘটনাগ্রস্ত ব্যক্তির জন্য প্রাথমিক চিকিৎসা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাভাবিক জীবনে আমরা অনেক কাজ করি যেখানে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে, আমরা বাড়িতে কাজ করি বা কোম্পানির কারখানায় কাজ করি, কেউ আমাদের দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচায় না। কিন্তু এর মাধ্যমে প্রাথমিক চিকিৎসা, আমরা সেই দুর্ঘটনায় হওয়া ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে পারি, তাই নিচে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনায় বিভিন্ন ধরনের প্রাথমিক চিকিৎসার কথা বলা হয়েছে।

জামাকাপড়ে আগুন

অনেক সময় আমরা রান্না করার সময় আমাদের কাপড়ে আগুন লেগে যায়। কাপড়ে আগুন লাগলে আমরা নিচের পদ্ধতি গুলি অবলম্বন করতে পারি।

  • রান্নার সময় বা কোনো কারণে কোনো ব্যক্তির কাপড়ে আগুন ধরলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে কম্বল দিয়ে ঢেকে মাটিতে গড়িয়ে দিতে হবে এবং মুখ ঢেকে রাখা উচিত নয়।
  • জ্বলন্ত ব্যক্তির উপর কখনই জল ঢালা উচিত নয় কারণ এটি পোড়া জায়গায় ক্ষতকে আরও গুরুতর করে তোলে।
  • দগ্ধ ব্যক্তিকে অন্য কোথাও নিয়ে যান যেখানে কেউ নেই অর্থাৎ নির্জন স্থানে তাকে চা বা দুধ পান করান।
  • পোড়া জায়গায় এক রাউন্ড বেকিং সোডা দিয়ে ব্যান্ডেজ করতে হবে।
  • যদি জ্বলন্ত ব্যক্তির জামাকাপড় লেগে যায়, তবে তার শরীর থেকে আরামে সেই কাপড়টি খুলে ফেলতে হবে এবং পোড়া জায়গায় অলিভ বা নারকেল তেল লাগাতে হবে।

মাথায় আঘাত দুর্ঘটনা

যদি কোনো কারণে মাথায় আঘাত লাগে, তাহলে সেই ব্যক্তিকে নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে হবে।

  • মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত একজন ব্যক্তিকে তার মাথা উঁচু করে চেয়ারে বসান
  • কান থেকে রক্তপাত হলে মাথায় আরেকবার ঘুরিয়ে দিন।
  • একটি পরিষ্কার কাপড় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে আহত ব্যক্তির মাথায় রাখুন।
  • আঘাতের কারণে যদি ব্যক্তি অজ্ঞান হয়ে যায়, তাহলে সেই ব্যক্তিকে সচেতন করার চেষ্টা করুন এবং দ্রুত চিকিৎসকের সাহায্য নিন।

সাপের কামড়

যদি কোন ব্যক্তিকে সাপে কামড়ায়, তাহলে তাকে নিম্নলিখিত উপায়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে হবে।

  • সাপে কামড়ানো ব্যক্তিকে শান্ত করার চেষ্টা করুন, তাকে বিশ্রাম দিন।
  • সাপের কামড়ের জায়গাটি সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন
  • সাপে কাটা জায়গাটি সর্বদা সেই ব্যক্তির হৃদয়ের নীচে রাখুন।
  • সাপের কামড়ের জায়গায় এবং তার চারপাশে বরফ দিয়ে প্যাক করুন যাতে এই বিষের বিস্তার কম হয়।
  • সাপে কামড়ানো ব্যক্তিকে ঘুমাতে দেবেন না, সর্বদা তার দিকে নজর রাখুন
  • এবং সেই ব্যক্তিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হাসপাতালে নিয়ে যান

কুকুরের কামড়ে

যদি কোনো ব্যক্তিকে কুকুর কামড়ায়, তাহলে সেই ব্যক্তির জন্য নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে প্রাথমিক চিকিৎসা করা উচিত। কারণ কুকুরের মুখে অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস থাকে

  • কুকুরের কামড়ের জায়গাটি সাবান এবং জল দিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে ধুয়ে ফেলুন
  • সাবান এবং জল দিয়ে ধোয়ার সময় অতিরিক্ত ঘষবেন না
  • যদি কাটা জায়গায় রক্তপাত হয় তবে রক্ত ​​একটু প্রবাহিত হতে দিন, এটি সংক্রমণ পরিষ্কার করে।
  • এবং কুকুর কামড়ানো ব্যক্তিকে জলাতঙ্কের টিকা দেওয়ার জন্য যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হাসপাতালে যান।

বিদ্যুত্প্রবাহ জনিত দূর্ঘটনা

যদি একজন ব্যক্তি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন, তাহলে তার জন্য নিম্নলিখিত উপায়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করা উচিত।

  • যদি কোনও ব্যক্তির কারেন্টের সংস্পর্শে আসে, তবে প্রথমে বৈদ্যুতিক মেইন সুইচটি বন্ধ করুন।
  • যদি বিদ্যুৎ পরিষেবা বন্ধ করতে না পারে, তাহলে সেই ব্যক্তিকে শুকনো কাঠ বা প্লাস্টিকের কোনো বস্তু দিয়ে সরিয়ে দিন।
  • স্রোত সহ একজন ব্যক্তি যদি সচেতন না হন তবে তাকে এবিসি নিয়মে তার চেতনায় আনুন।
  • কারেন্টের সংস্পর্শে থাকা ব্যক্তি যদি পুড়ে যায় তবে পোড়া জায়গাটি পরিষ্কার কাপড় দিয়ে ঢেকে দিন।
  • এবং সেই ব্যক্তিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হাসপাতালে নিয়ে যান

প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন

প্রাথমিক চিকিৎসা শব্দটি কখন ব্যবহৃত হয়?

ওয়ার্ল্ড ফার্স্ট এইড ডে (বিশ্ব প্রাথমিক চিকিৎসা দিবস) 2000 সালে ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ রেড ক্রস এবং রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিজ (IFRC) চালু করেছিল।

হার্ট অ্যাটাকের পর প্রাথমিক চিকিৎসা কী দেওয়া হয়?

হঠাৎ আক্রমণ হলে বুকে চেপে শ্বাস-প্রশ্বাস শুরু করার চেষ্টা করুন। অবিলম্বে পরে রোগীর ডিম্বপ্রসর এবং এসপিরিন ট্যাবলেট দান , জরুরি নম্বর কল এবং অ্যাম্বুলেন্সে অবিলম্বে কল। হার্ট অ্যাটাকের ক্ষেত্রে, প্রথমে রোগীকে আরামদায়ক অবস্থায় শুয়ে রাখুন এবং তাকে অ্যাসপিরিন ট্যাবলেটটি চুষতে দিন।

প্রাথমিক চিকিৎসার মূল উদ্দেশ্য কী?

প্রাথমিক চিকিৎসার তিনটি উদ্দেশ্য রয়েছে । প্রথমত জীবন সুরক্ষা, দ্বিতীয়ত অবস্থার অবনতি রোধ করা এবং তৃতীয়ত রোগমুক্ত হতে সাহায্য করা । রক্তপাত হলে তা বন্ধ করার ব্যবস্থা নিন। সঠিক সময়ে প্রাথমিক চিকিৎসা পেলে সংশ্লিষ্ট রোগীর জীবন বাঁচানো সম্ভব।

সর্বশেষ কথা

এই পোস্টে আপনি ফার্স্ট এইড বা প্রাথমিক চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রশ্ন এবং উত্তর, ফার্স্ট এইড বক্স, প্রাথমিক চিকিৎসার নিয়ম,প্রাথমিক চিকিৎসার প্রকার, প্রাথমিক চিকিৎসার বৈশিষ্ট্যের এবং এই সকল প্রশ্ন এবং তার উত্তর আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আমাদের সকলেরই এই প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পকে ঙ্গান থাকা দরকার, কেননা আমরা দৈনন্দিক জিবনে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দূর্ঘটার সম্মুখি হয়ে থাকি এবং সেই সময় আমরা ফার্স্ট এইড সম্পর্কে আমাদের কোন ঙ্গান না থাকার কারনে অনেক বড় সমস্যা হয়ে থাকে।
এই পোষ্টটি সম্পর্কে আপনাদের কোন মতামত থাকলে তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা আপনার মতামতের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ইং-শা আল্লাহ্

Leave a Comment

Your email address will not be published.