ডোমেইন নেম কি

ডোমেইন নেম কি? ডোমেইন নেম সম্পর্কিত সকল তথ্য জানুন

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার আগে, ডোমেন নেম কী তা জানা গুরুত্বপূর্ণ। আপনি নিশ্চয়ই ইন্টারনেটে দেখেছেন যে প্রতিটি ওয়েবসাইটের একটি ডোমেইন নেম রয়েছে। যা ইন্টারনেটের জগতে একে আলাদা পরিচিতি এনে দেয়।

আপনি যখনই ইন্টারনেটে কোনো বিষয় নিয়ে সার্চ করবেন, তখন আপনাকে গুগলে (Google) বা বিং (Bing) বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে সেই বিষয়টি নিয়ে কিছু টাইপ করতে হবে। এরপর গুগল বা বিং আপনাকে বিভিন্ন নামের অনেক ওয়েবসাইট দেখায়, যেখানে আপনার অনুসন্ধান করা ফলাফল আপনি পেয়ে যান।

একজন মানুষকে চেনার জন্য যেমন একটি নেম আছে, তেমনি ইন্টারনেটের জগতে প্রতিটি ওয়েবসাইটকে চেনার জন্য একটি ডোমেইন নেম প্রয়োজন। একটি ডোমেইন নেম যা ওয়েবসাইটের পরিচয় দেয়। এটি ছাড়া কোনো ওয়েবসাইট খোলা যাবে না।

আজকে আমরা এই আর্টিকেলে ডোমেইন নেম কি, ডোমেইন কাকে বলে, টপ লেভেল ডোমেইন কি, ডোমেইন কিভাবে কাজ করে, ডোমেইনের প্রকারভেদ, কিভাবে একটি ভাল ডোমেইন মেন সিলেক্ট করবেন সেই সাথে ডোমেইন নেম সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য আপনাদের দেওয়ার চেষ্টা করব ইং-শা আল্লাহ।

ডোমেইন নেম কি (What is Domain Name)

ডোমেইন নেম হলো কোন ওয়েবসাইটের নাম, যার মাধ্যমে আমরা একটি ওয়েবসাইটকে চিনে থাকি। যেমন https://www.hubpez.com/about-us  এখানে hubpez.com একটি ডোমেইন নেম।

ইন্টারনেটে যত লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট আছে তারা সবাই এক বা একাধিক আইপি অ্যাড্রেস (IP Address) এর মাধ্যমে কাজ করে। কিন্তু মানুষের পক্ষে এসব আইপি অ্যাড্রেস (124.115.121.114) গুলি মনে রাখা সম্ভব নয়। তাই ওইসব আইপি অ্যাড্রেস গুলিকে একটি ডোমেইন নেম এর সাথে যুক্ত করে আমাদের সামনে উপস্থাপন করা হয়।

DNS বা ডোমেইন নেম সিস্টেম হল এমন একটি সিস্টেম যার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের নামকরণ করা হয়ে থাকে। প্রতিটি ওয়েবসাইটের আইপি অ্যাড্রেস গুলিকে একটি ডোমেইন নেম এর সাথে যুক্ত। যে সার্ভারে ডোমেইন নেম এর সাথে আইপি অ্যাড্রেস সংযুক্ত ডাটাবেজ সমুহ সংরক্ষন করে তাকে বলা হয় DNS Server বা ডোমেইন নেম সার্ভার।

আমরা এই উদাহরণ এর মাধ্যমে বিষয়টা আরো ক্লিয়ার হয়ে যাব।

আমরা মোবাইল নম্বর মোবাইলে সঞ্চয় করে রাখার জন্য কোন নাম দিয়ে সেভ করে রাখি। যার কারণে কোন ব্যক্তি কে ফোন করলে ওই ব্যক্তির কাছে ওই মোবাইল নম্বর এর দ্বারা কল চলে যায়। আমাদের শুধু নামটা মনে রাখলেই চলে, আমাদেরকে আর আলাদা আলাদা ভাবে নাম্বারগুলি মনে রাখার প্রয়োজন পড়ে না।

ঠিক তেমনই নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের আইপি এড্রেসকে মনে রাখার সুবিধার্থে ডোমেন নেম ব্যবহৃত হয়।

ডোমেইন কাকে বলে (What is Domain)

কোন ওয়েবসাইট এর নামকেই ডোমেইন নেম বলা হয়। যার সাহায্যে আমরাই ইন্টারনেটে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারি এবং আমাদের প্রয়োজনিয় কন্টেন্ট বা তথ্য সমুহ দেখতে পারি।

আলাদা আলাদা ওয়েবসাইটের নামের জন্য আলাদা আলাদা আইপি অ্যাড্রেস থাকে (ip-adress), যার যাহায্যে কোন কম্পিউটার বা সার্ভার, ওই পার্টিকুলার আইপি অ্যাড্রেস এর দ্বারা ইউজার এর সামনে পার্টিকুলার ওয়েবসাইট নেমটিকে বা ওয়েবসাইটটিকে দেখাতে সক্ষম হয়।

ডোমেইন নেম কিভাবে কাজ করে

একটি ডোমেন নাম একটি বিশ্বব্যাপী নেটওয়ার্কের অংশ যা ডোমেন নেম সিস্টেম (DNS) নামে পরিচিত।

আপনি যখন আপনার ওয়েব ব্রাউজারে একটি ডোমেন নেম বা একটি URL প্রবেশ করান, তখন ব্রাউজারটি প্রথমে DNS-এর মাধ্যমে ডোমেইন নেম সার্ভারে একটি অনুরোধ পাঠায় ডোমেনটি কোন আইপি অ্যাড্রেস এর সাথে যুক্ত এবং এটি কোথায় হোস্ট করা আছে তা খুঁজে বের করতে।

ডোমেইন নেম সার্ভার ডোমেইন নেম এর সাথে যুক্ত আইপি অ্যাড্রেসটি খুজে বের করে এবং এই  আইপি অ্যাড্রেস যুক্ত ওয়েবসাইটটি কোথাই হোস্ট করা আছে তা খুজে বের করে তার কাছে আপনার রিকুয়েষ্টি পাঠিয়ে দেয়।

এরপর হোস্টিং কোম্পানি তাদের হোস্টিং সাভার থেকে আপনার কাঙ্খিত ওয়েবসাইটটি খুজে বের করে ওয়েব পৃষ্ঠা এবং এর সাথে সম্পর্কিত আপনার ব্রাউজারে ফরওয়াড করে দেয়।

আরো পড়ুন: হোস্টিং কি? হোস্টিং কিভাবে কাজ করে

এই সমস্থ কার্যকালাপটি ঘটে থাকে আমাদের অগোচরে যা আমরা দেখতে পাইনা, এবং এই পুরো প্রক্রিয়াটি ঘটে থাকে মাত্র কয়েক মিলি সেকেন্ড বা সেকেন্ডে। এটি নির্ভর করে আপনার ইন্টারনেট গতি এবং হোস্টিং কোনম্পারিন উপর।

ডোমেইন নেমের প্রকারভেদ

ডোমেইন নেমের প্রকারভেদ

যদি দেখা যায়, অনেক ধরনের ডোমেইন নেম আছে কিন্তু আজ আমি আপনাদের সেই সব ধরনের সম্পর্কে বলব যেগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যাতে আপনি যখনই একটি ডোমেইন নাম চয়ন করবেন, আপনার এটি চয়ন করতে খুব সহজ হবে।

1. TLD – Top Level Domain

Top Level Domain (TLD) এটি Internet domain extension নামেও পরিচিত। ইনটারনেটে যত ধরনের ডোমেইন এক্সটেনশন রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত এবং বেশি ভালুয়েবল ডোমেইন এক্সটেনশন হল টপ লেভেল ডোমেইন কি (Top Level Domain) extention।

এটি একটি ডোমেইন নেম এর শেষ অংশটি মূলত ডোমেইন এক্সটেনশন। উদাহরণ স্বরূপ: যদি আমি আমার ব্লগের ডোমেইন নামের কথা বলি তাহলে, hubpez.com আমার ডোমেইন নাম এবং এখানে ডটের (.) পরের “com” শব্দটি হলো আমার domain extention যা একটি top level domain extension।

এই ডোমেনের সাহায্যে আপনি সহজেই আপনার ওয়েবসাইটকে রাংক করতে পারবেন এবং এটা খুবই এসইও ফ্রেন্ডলি। আর গুগল সার্চ ইঞ্জিন সহ অন্য সার্চ ইঞ্জিনও একে বেশি গুরুত্ব দেয়।

তাই, আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানানোর কথা ভাবে থাকেন, তাহলে এই ধরণের টপ লেভেল ডোমেইন ব্যবহার করাটাই ভালো এবং আপনার জন্য লাভজনক হবে।

কিছু Top Level Domain (TLD) এক্সটেনশন এর উদাহরণ:

  • .Com (commercial)
  • .Org (Orgenization)
  • .Net (Network)
  • .gov (Government)
  • .edu (Education)
  • .biz (Business)
  • .info (Information)
  • .name (Name)

যেমন Google.com , hubpez.com , Facebook.com

2. CcTLD (Country Code Top Level Domain)

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটিকে নির্দিষ্ট দেশ (Country) কে লক্ষ করে বানিয়ে থাকেন তাহলে এই ধরনের ডোমেইন এক্সটেনশন গুলি ব্যবহার করতে পারেন। এই ধরনের ডোমেইন সাধারণত একটি নির্দিষ্ট দেশকে সামনে রেখে ব্যবহার করা হয়। যেকোনো দেশের two letter ISO code এর উপর ভিত্তি করে এর নামকরণ করা হয়েছে। যেমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ CcTLD ডোমেইন এক্সটেনশন দেওয়া হয়েছে।

  • .us:  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
  • .BD: বাংলাদেশ
  • .in:  ভারত
  • .ch:  সুইজারল্যান্ড
  • .cn:  চীন
  • .ru:  রাশিয়া
  • .br:  ব্রাজিল

এছাড়াও আরো অনেক এমন Country code top level ডোমেইন এক্সটেনশন রয়েছে, যেগুলি কেবল একটিমাত্র নির্দিষ্ট দেশকে টার্গেট করে নামকরণ করা হয়েছে।

সাবডোমেন নাম কি (What is Subdomain)

এতক্ষনে আপনি বুঝতে পেড়েছেন যে ডোমেইন নেম কী , এখন আমরা আপনাকে বলব সাব ডোমেইন কি? সাব ডোমেইনগুলি নিজেই ডোমেনের অংশ, এবং সাব ডোমেনগুলি কেনা হয় না বরং নিজেরাই তৈরি করা হয়। আপনি যদি একটি TLD, CcTLD বা অন্য ডোমেইন কিনে থাকেন, তাহলে আপনি এটিকে সাব ডোমেনেও ভাগ করতে পারেন।

একটি উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি আরো পরিষ্কার করা যাক:

আমি একটি hubpez.com নামটি একটি ডোমেইন প্রোভাইডারের থেকে কিনে রেজিস্টার করি, এটা আমাদের ডোমেন মেইন হয়ে গেছে, এবং এটি একটি বাংলা সাইট। এখন আমি মেইন ডোমেইন এর অধিনে একটি ইংরেজি সাইট বানাতে চাই তাহলে আমরা মেইন ডোমেই hubpez.com কে en.hubpez.com এই ভাবে একটি সাবডোমেইনে ভাগ করে নিতে পারি। এখানে en.hubpez.com হল একটি সাবডোমেইন।

  • hubpez.com (প্রধান ডোমেন)
  • en.hubpez.com (সাব ডোমেন)

এর অর্থ হল আপনি বিনামূল্যে একটি প্রধান ডোমেইন থেকে একটি সাব ডোমেইন তৈরি করতে পারেন। অনেক বড় ওয়েবসাইট সাব ডোমেইন তৈরি করে ইন্টারনেটে ওয়েবসাইট চালায় যেমন: নিউজ ওয়েবসাইট, টেক ওয়েবসাইট বা গভমেন্ট ওয়েবসাইট

কিভাবে একটি ডোমেন নাম চয়ন করবেন:

আপনি যদি নিজের জন্য বা আপনার ব্যবসার জন্য একটি ডোমেইন কিনতে চান, তাহলে বিশ্বস্ত ডোমেইন প্রদানকারীর কাছ থেকে একটি ডোমেন নেওয়া ভাল।

ডোমেইন নেম কেনার আগে কিছু জিনিস মনে রাখলে ভালো হবে:

  • আপনি যে কাজের জন্য ডোমেইন কিনছেন সেই কাজের সাথে সম্পর্কিত একটি নাম থাকলে ভালো হয়।
  • সর্বদা ডোমেইন নাম ছোট রাখার চেষ্টা করুন (5 অক্ষর থেকে 16 অক্ষরের মধ্যে ভাল)
  • ডোমেইন নামের কোনো বিশেষ অক্ষর না থাকলে ভালো হয়।
  • ডোমেইন নামে হাইফেন রাখা সঠিক নয়। এতে দর্শনার্থীদের নাম মনে রাখা কঠিন হয়ে পড়বে।
  • সর্বদা টপ লেভেল ডোমেইন বা কান্ট্রি কোড টপ লেভেল ডোমেইন কেনার চেষ্টা করুন।
  • শুধুমাত্র একটি বিশ্বস্ত ডোমেইন নাম নিবন্ধনকারী কোম্পানি থেকে ডোমেইন কিনুন। এর মাধ্যমে আপনি সাপোর্ট এবং সার্ভিস দুটোই ভালো পাবেন।

পরিশেষে, আমি আপনাকে বলতে চাই যে ডোমেইন নাম সর্বদা একটি সংক্ষিপ্ত এবং মনে রাখা সহজ নাম হওয়া উচিত।

আপনি কেন ডোমেইন কিনবেন?

ডোমেইন কিনবেন

এটা একটি কমন প্রশ্ন হতে পারে যে আমি কেন ডোমেইন কিনব? একটি ডোমেইন কিনার অনেক কারণ থাকতে পারে। যেমন আপনার যদি একটি বিজনেস থাকে তাহলে আপনার সেই বিজনেসের প্রচার ও প্রশারের জন্য আপনি আপনার বিজনেসের নামে একটি ডোমেইন কিনতে পারেন। আপনি যদি ব্লগিং করতে চান তাহলে আপনার ব্লগ এর জন্য ডোমেইন লাগবে। আপনি আপনার নিজের নামে একটি পোর্টফলিও ওয়েবসাইট বানাতে পারেন তার জন্য ডোমেইন লাগবে।

তাছাড়াও আনেকে নিজেদের শখের বশে  ডোমেইন কিনে রাখে। যদি আপনার নিজের নামে ডোমেইন কিনে রাখেন। তাহলেও সেটা খারাপ কিছু নয়। আবার অনেকে ডোমেইন কিনে রাখে পরবর্তীতে তা বেশি দামে বিক্রি করে দেয়।

ডোমেইন কিনতে সতর্কতা

আপনি যখন একটি ডোমেইন কেনার কথা ভাবতেছেন তখন আপনাকে কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে তাছাড়া পরবর্তীতে আপনি এই ডোমেইন নিয়ে বিভিন্ন সমস্যায় পরতে পারেন। আপনি ডোমেইন কেনার পর যাতে করে আর সমস্যায় না পরেন তার জন্য কিছু সতর্কতার প্রয়োজন। নচে তা উল্লেখ করা হল।

  1. ডোমেইন ট্রেডমার্ক
  2. ডোমেইন সিকিউরিটি
  3. ডোমেইন রিনিউ
  4. ডোমেইন ট্রান্সফার

ডোমেইন ট্রেডমার্ক

ডোমেইন কেনার আগে অবশ্যই ট্রেডমার্ক করা ডোমেইন থেকে বিরথ থাকুন। ট্রেডমার্ক করা কোন কোম্পানিরে নামে বা তাদের নাম ব্যবহার করে ডোমেইন কিনলে পরে তারা আপনার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্তা নিতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার জেল বা জরিমানা হতে পারে।

সুতরাং অবশ্যই ডোমেইন কেনার আগে ট্রেডমার্ক এর বিষয়টা গুরুত্বের সাথে দেখবেন

ডোমেইন সিকিউরিটি

আপনি যখন একটি ডোমেইন কিনবেন তখন অবশ্যই তার সিকিউরিটির বিষয়টি নিয়ে ভাববেন। আপনি যে ডোমেইনটি কিনতেছেন তার যদি সিকিউরিটি না থাকে তাহলে যে কোন সময় আপনার ডোমেইনটি আপনার হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে।  এজন্য যে ডোমেইনটি কিনবেন কেনার সময় ডোমেইন প্রভাইডার কোম্পানি আনাকে ডোমেইনটির সিকিউরিটি কতটুকু প্রদান করবে তা নিশ্চিত হয়ে নিবেন।

ডোমেইন রিনিউ

যেকোন ডোমেইন সাধারণত ১ বছর এর জন্য সেল করা হয়। আপনি চাইলে একটি ডোমেইন আপনি এক, দুই, তিন বা পাঁচ বছরের জন্য কিনতে পারেন এবং এই সময় পর এই ডোমেইনটিকে আপনার আবার রিনিউ করতে হবে বা তার জন্য আপনাকে আবার টাকা দিতে হবে।

আজকাল মার্কেটে অনেক ফেইক এবং প্রতারক কোম্পানি রয়েছে যারা ডোমেইন হোস্টিং সেল করে থাকে। কিন্তু আপনি যখন আপনার ডোমেইন রিনিউ করতে যাবেন তখন তারা আর এটি রিনিউ করে দিবে না বা আপনার কাছে থেকে অনেক বেশি টাকা চাইবে। এই রকম পরিস্থিতিতে আপনার ডোমেইনটি আর আপনার নাও থাকতে পারে। তাই টাকা একটু বেশি লাগলেও অবশ্যই একটি ভাল কোম্পানি থেকে ডোমেইন কেনার চেষ্টা করবেন।

ডোমেইন ট্রান্সফার

ডোমেইন ট্রান্সফার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ডোমেইন ট্রান্সফার হল ডোমেইন রেজিস্টার এক কোম্পানি থেকে অন্য কোম্পানিতে ট্রান্সফার করা।

অনেক কোম্পানিই এই সুবিধাটি আপনাকে দিতে চাইবে না সেক্ষেত্রে সরাজিবন আপনাকে ঐ একটি কোম্পানির কাছে জিম্মি হয়ে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে তারা লাভবান হবে কিন্তু আপনি ক্ষতিগ্রস্থ হবেন।

সেজন্য ডোমেই কেনার আগে দেখে কিনুন তারা এই সার্ভিসটি দিয়ে থাকে কিনা। যদি না থাকে তাহলে আপনি ঐসকল কোম্পানি থেকে দূরে থাকুন।

ডোমেইন কোথায় থেকে কিনবেন

আপনি কি আপনার নিজের ব্লগ তৈরি করতে চান অথবা আপনি আপনার ব্যবসার জন্য একটি ওয়েবসাইট করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটি ডোমেইন নেম কিনতে

আমি আপনাকে কিছু DNS পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার নাম বলব যেখান থেকে আপনি নিজের জন্য বা আপনার ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য ডোমেইন কিনতে পারবেন।

এখানে নীচে দেওয়া কোম্পানির তালিকা থেকে যেকোনো একটি বেছে নিতে পারেন। সেখানে নিবন্ধন করে এবং একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে, আপনি আপনার ডোমেন নাম নিবন্ধন করে একটি ওয়েবসাইট শুরু করতে পারেন।

বাংলাদেশের সেরা ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি:

আমাদের অনেক সময় ডোমেইন হোস্টিং কেনার দরকার পরে কিন্তু পৃথিবির প্রায় বড় বড় ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানিগুলি বাংলাদেশি কারেন্সিতে সেবা দেয় না। আমরা যদি তাদের কাছে থেকে ডোমেইন হোস্টিং কিনতে চাই সেক্ষেত্রে আমাদের তা ডলারে পেমেন্ট করতে হবে। তার জন্য পেপাল, পাইনিয়োর, বা অন্যান্য মাস্টার কার্ড ব্যবহার করতে হবে।

আমাদের এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা বাংলাদেশি কিছু ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে তাদের কাছে থেকে এই সেবা নিতে পারি। এখানে আমরা বাংলাদেশি পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহার করে পেমেন্ট করতে পারব। যেমন: বিকাশ, নগদ, রকেট এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন বাংকের কার্ড ব্যবহার করে পেমেন্ট করতে পারব।

নিচে বাংলাদেশের সেরা কিছু ডোমেইন হোস্টিং কোম্পারিন লিস্ট দেওয়া হল।

  1. Exonhost
  2. Hostever
  3. EBNHost
  4. WebHostBD
  5. CodeForHost

বিশ্বব্যাপি সেরা ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি:

দেশীয় ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানিগুলিতে আমরা সহজেই পেমেন্ট করতে পারলেও তাদের সার্ভিস নিয়ে কিছু প্রশ্ন থেকেই যায় তাই অনেকে বিশ্বব্যাপি প্রসিদ্ধ কোম্পানির ডোমেইন হোস্টিং ব্যবহার করে।

যদি আপনার পেমেন্ট সিস্টেম নিয়ে কোন সমস্যা না থাকে তাহলে আপনার জন্য ভাল হবে বিশ্বব্যাপি প্রসিদ্ধ কোম্পানির মধ্যে থেকে কোন এটি থেকে ডোমেইন হোস্টিং কেনা। কারণ তাদের সর্ভিস  ও সাপোর্ট দুটাই অনেক ভাল পাবেন আশা করা যায়।

নিচে বিশ্বব্যাপি সেরা কিছু ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানির লিস্ট দেওয়া হল।

  • BlueHost
  • DreamHost
  • NameCheap
  • Godaddy
  • Hostinger

আপনি এই ডোমেইন প্রদানকারীর যেকোনো একটি থেকে নিজের জন্য সেরা ডোমেইন নাম কিনতে পারেন৷ আমরা সাজেশন হবে আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে ডোমেইন হোস্টিং কিনতে চান তাহলে Exonhost থেকে কিনতে পারে। কারণ তাদের সার্ভিস এবং সাপোর্ট দুটিই ভাল।

ডোমেইন নেম সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন

ডোমেইন নেম এ www থাকে কেন

www এর পুরো কথা হলো world wide web। কোন ওয়েবসাইটে www লাগানো মানে বুঝায় ওয়েবসাইটটি পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে যে কোন সময় ব্যবহার করা যাবে। সেটি যে দেশেই হোক না কেন। তবে বর্তমানে বেশিরভাগ ওয়েবসাইটে www ব্যবহার করা হয় না। এবং এটি ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক নয়। যদি আপনার ওয়েবসাইটটি খুব বড় হয় তাহলে আপনি এটা ব্যবহার করতে পারেন।

সারা বিশ্বের সকল আইপি অ্যাড্রেস ও ডোমেইন নেম নিয়ন্ত্রণ করে কোন প্রতিষ্ঠান

ICANN নামক একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে বিশ্বের সকল আইপি এড্রেস এবং ডোমেইন নাম গুলি নিয়ন্ত্রণ করে।

ICANN এর পুরো কথা হল Internet Corporation for Assigned Names and Number। এই প্রতিষ্ঠানটির সাহায্যে পুরো বিশ্বের ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন এবং মূল্য নির্ধারিত হয়।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত টপ লেভেল ডোমেইন এর নাম কি

যদি আপনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এর জন্য কোন ডোমেইন নেম কিনতে চান তাহলে আপনি এইসব টপ লেভেল ডোমেইন এক্সটেনশানগুলি ডোমেইন নেমে লাগাতে পারেন।
.college
.university
.academy
.institute
.school
.training
.education
.study

শেষ কথা

ডোমেইন নেম একটি ওয়েবসাইট তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এখন নিশ্চয়ই ব্যাপারটা ভালো করে বুঝে ফেলেছেন।

আমি আশা করি আপনি এখন ডোমেইন নেম কি, ডোমেইন  কিভাবে কাজ করে, এর প্রকারভেদ এবং ডোমেইন সম্পর্কিত সকল তথ্য পেয়েছেন আমাদের এই আর্টিকেলে।

এই আর্টিকেল সম্পর্কে আপনার কোন মতামত থেকে থাকে তাহলে আমাদের তা কমেন্ট করে জানান, যাতে করে আমরা আমাদের ভুল গুলির সমাধান করতে পারি।

Leave a Comment

Your email address will not be published.